সময় - একটি শিক্ষনীয় গল্প | আমরা বাঙালী - Amra Bangali

 

Amra Bangali - আমরা বাঙালী ব্লগ

Amra Bangali Blog - আমরা বাঙালী ব্লগ


শিক্ষনীয় গল্প ও শিক্ষামূলক ঘটনা

আপনি কি জানেন এই পৃথিবীর সবথেকে শক্তিশালী জিনিসের ব্যাপারে । যদি এই শক্তিশালী জিনিসটিকে আপনি একবার বুঝে  যান এবং এটিকে হ্যান্ডেল করা টেকনিক যদি শিখে যান তাহলে, আমি হান্ড্রেড পার্সেন্ট গ্যারান্টি দিচ্ছি যে, আপনি সেই সকল জিনিসগুলি করতে পারবেন । সেই সকল জিনিসগুলিকে নিজের বানাতে পারবেন । যেগুলো কিনা আপনি এতদিন ধরে কেবলমাত্র স্বপ্নেই ভাবতেন । আপনার কাছে শুধু একটাই অনুরোধ যে , আপনি এই ব্লগটি  অবশ্যই শেষ পর্যন্ত পড়বেন।  কারণ আমি চাইনা যে আপনার কাছে অর্ধেক নলেজ গিয়ে পৌঁছাক । 


উপদেশ মূলক গল্প, পরিশ্রমের সফলতা,



 আমি যে শক্তিশালী জিনিসটির কথা বলছি তা হল সময় । আপনি কি জানেন যে , সফল হওয়া এবং অসফল হওয়ার মধ্যে কি তফাৎ রয়েছে ? সফল ব্যক্তি জানে যে তাকে কোথায় তার টাকা এবং টাইম কে ইনভেস্ট করতে হবে । কিন্তু অসফল ব্যক্তি জানে না যে , কোথায় থাকে তার টাকা এবং টাইম কে ইনভেস্ট করতে হবে , এই কারণের জন্যই আজ কেউ সফল আবার কেউ অসফল ।  

আচ্ছা সবই তো বুঝলাম কিন্তু টাইম ইনভেস্ট টা বুঝলাম না.?  টাকা ইনভেস্ট করার কথাটা শুনেছি কিন্তু  টাইম ইনভেসমেন্ট আবার কি জিনিস আগে তো কোথাও শুনিনি ?




 আচ্ছা ঠিক আছে আমি এই সম্পর্কে একটি এক্সাম্পল দ্বারা বুঝিয়ে দিচ্ছি। রিসেন্ট বোল্ট নামক একজন অলিম্পিক অ্যাথলেট  যিনি একশো মিটার দৌড়ে স্প্রিন চ্যাম্পিয়ন । তিনি লাস্ট তিনটি অলিম্পিকে কেবলমাত্র একশো মিটার -পনেরো সেকেন্ড সময়ে দৌড়ে ছিলেন । আর এই পনেরো সেকেন্ড দৌড়ের জন্য তাকে একশো উনিশ মিলিয়ন ডলার দেওয়া হয়েছিল । অর্থাৎ প্রতি এক সেকেন্ডের জন্য তাকে এক মিলিয়ন ডলার দেওয়া হয়েছিল । এটা পুরাই অবাক করার ব্যাপার তাই না ? এক মিলিয়ন ডলার অর্থাৎ বাংলাদেশি টাকায়  প্রায় সাত কোটি সাতান্ন লক্ষ একাত্তর হাজার পাঁচশো টাকা। কিন্তু এই একশো মিটার পনেরো সেকেন্ডের দৌড়ের জন্য তাকে বিশটি বছর নিজেকে ট্রেন করতে হয়েছে । তবেই গিয়ে সে তার সেকেন্ড এর ভ্যালু কে এতটা করতে পেরেছে । এই বিশ বছর ছিল তার টাইম ইনভেস্টমেন্ট । এটিই হলো সময়ের ইনভেস্টমেন্ট ।





 

ঠৎ তার কাছে একজন মহিলা এলেন এবং তিনি পাব্লোপিকাসো কে বলেন  তার স্কেচ তৈরি করার জন্য।আর এই স্কেচ বানানোর জন্য রিকোয়েস্ট করলেন । পিকাসু সেই টেবিলে রাখা একটি পেপার নিয়ে দু মিনিট সময় নিয়ে ।  হ্যাঁ দু মিনিট সময় নিয়ে সেই মহিলার একটি ছবি এঁকে দিলেন । সেই মহিলাকে সেই ছবি টি দিয়ে বললেন যে , " দিস ইজ ওয়ান মিলিয়ন ডলার পেন্টিং " অর্থাৎ এই ছবির মূল্য এক মিলিয়ন ডলার ।সেই মহিলা টি অবাক হয়ে গেলেন । এবং তার কথা টি যাচাইয়ের জন্য  মার্কেটে গিয়ে সেই স্কেচ টি নিয়ে গিয়ে দেখায়৷। এবং তিনি সব জায়গায় গিয়ে  জানতে পারলেন যে সত্যিই সেই স্কেচ টি ওয়ান মিলিয়ন ডলার ছিল ।



 শিক্ষার্থীদের অনুপ্রেরণার গল্প , সফলতা ও অনুপ্রেরণার গল্প



 সেই মহিলাটি আবার পিকাশুর কাছে এলেন তিনি পিকাসুকে জিজ্ঞেস করলেন যে, সামান্য দু মিনিটে আপনি কিভাবে এই ওয়ান মিলিয়ন ডলারের স্কেচ টিকে বানিয়ে ফেললেন ? এই কথাটি শুনে পিকাসু হেসে বললেন যে , প্রতিভাকে পাওয়ার জন্য আমি আমার জীবনের ত্রিশ বছর ইনভেস্ট করেছি । আর এটিই হলো টাইমের ইনভেস্টমেন্ট । আসা করি নিশ্চয়ই টাইম ইনভেস্টমেন্ট কি তা বুঝতে পেরেছেন । তাই নিজের এই মূল্যবান সময়কে এমন জায়গায় ইনভেস্ট করুন যা ভবিষ্যতে গিয়ে হিউজ এমাউন্টের রিটার্নসে পরিণত হয়। 



 অর্থাৎ আজ আপনার কাছে টাইম আছে , নিজের স্কিলটি আরও উন্নত করতে বা নতুন কিছু  জিনিস শেখার কাজে লাগান । যার রিটার্ন গিফট আপনি অবশ্যই পাবেন । কিন্তু আজ যদি আপনি এটিকে ওয়েস্ট করে দেন তাহলে সারা জীবন আফসোস করতে হবে । আর এই জন্য-ই এই টাইমকে ভ্যালু দেওয়া শিখুন । আজ যদি আপনি এটিকে ভ্যালু না দেন তাহলে কাল এই পৃথিবী আপনাকে ভ্যালু দেবে না । ইতিহাসে খুব কম লোককেই দেখতে পাওয়া যায় । যারা এই সময়ের সঠিক ব্যবহার করতে পেরেছিল। এবার আপনাদের মধ্যে থেকে অনেকেই হয়তো ভাবছেন যে ভাই  ইচ্ছে তো রয়েছে অনেক কিছুই করার । কিন্তু টাইমই তো নেই আমার কাছে । 




তো একেবারেই টাইম নেই আপনার কাছে। আসলে সত্যি বলতে কি জানেন ? আপনার কাছে সময়ের অভাব নেই ।বরং অভাব আছে টাইম ম্যানেজমেন্টের । কারণ ? একদিনে এই পৃথিবীতে সকল ব্যক্তি চব্বিশ ঘন্টাই টাইম পায় । কেও কম নয় আবার কেউ বেশিও নয় । আর এই চব্বিশ ঘন্টার সঠিক ব্যবহার করে ধীরু বাই নামক ব্যক্তি রেলিয়ান্স নামের এত বড়ো কোম্পানি তৈরী করেছে । এই চব্বিশ ঘন্টার সঠিক ব্যবহার করে জ্যাকমা  আলিবাবা নামের কোম্পানিকে সব দেশে ছড়িয়ে দিয়েছে । 




তাহলে কেন আপনার কাছে এই চব্বিশ ঘণ্টা কম পড়ছে । লাইফে বড় কিছু করার চেষ্টা কর  ? কারণ আপনি টাইমকে এখনো ঠিক মতো ম্যানেজ করতে শেখেন , টাইম কে ম্যানেজ করার সবথেকে বেস্ট এবং কার্যকরী মাধ্যম হলো । এই যে প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর ডাইরিতে একটি লিস্ট তৈরি করুন । সেই সকল কাজগুলোকে  আপনাকে আজকের এই চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে কমপ্লিট করতেই হবে । প্রতিটি কাজকে প্রায়োরিটি ওয়াইজ নাম্বার দিয়ে একটি লিস্ট তৈরি করুন । যেগুলোকে আপনাকে আজকের মধ্যেই কমপ্লিট করতে হবে । সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর সেই লিস্ট অনুযায়ী কাজ করা শুরু করে দাও।  এবং ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি ঘুমাবেন না, ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি রেস্ট করবেন না, যতক্ষণ পর্যন্ত না সেই লিস্টের প্রতিটি কাজ কমপ্লিট হয় । বাজুক না রাত্রি বারোটা, একটা, বা দুটা, আপনি ততক্ষণ পর্যন্ত ঘুমাবেন যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনার লেখা সেই লিস্টের প্রতিটি কাজ কমপ্লিট হয় । 



Amra Bangali - আমরা বাঙালী ব্লগ 



আর।এইভাবে আপনি টাইমের সঠিক ব্যবহার  শিখতে পারবেন । এবং আপনি সময়ের গুরুত্বকে বুঝতে পারবেন । আপনার প্রোডাক্টটিভিটি আগের থেকে একশো গুণ বেশি ই হয়ে যাবে । এই ট্রিকটিকে অবশ্যই ট্রাই করবেন । কারণ সত্যিই এটি খুব ইফেক্টিফিটি একটি ট্রিক । এই সময় খুবই মূল্যবান এটি আপনাকে গড়তেও পারে আবার ভাঙতেও পারে । আর এটা সম্পূর্ণভাবে আপনার উপর ডিপেন্ড করবে । আপনি এটিকে ভালো কাজে লাগাবেন নাকি খারাপ কাজে লাগিয়ে ওয়েস্ট করে দেবেন একান্তই আপনার বিষয় । 



এই সময় হল এমন একটি জিনিস যা একবার যদি চলে যায় তাহলে আর কোনদিনই ফিরে আসবে না । এই পৃথিবীতে এমন কোন ধনি ব্যক্তি নেই যে , তার অতীত অর্থাৎ পার হয়ে যাবা সময়  কিনতে পারবে । আর নিশ্চয়ই এই পৃথিবীতে সকল মানুষ  (ধনী, গরিব) ব্যক্তি যে তার ভবিষ্যৎ কে অর্থাৎ আগামী সময়কে বদলাতে পারবেই পারবে । 

 জীবনের অনুপ্রেরণার গল্প


 এই কারণের জন্য সময় আপনাকে বদলে দেওয়ার আগেই আপনি সময়কে বদলে ফেলুন । হ্যাঁ, আরেকটি কথা কোনদিন নিজের টাইমকে অপরের টাইমের সঙ্গে তুলনা করবেন না । কারণ প্রত্যেককে নিজের আলাদা আলাদা টাইম টেবিলে চলে । যে কারনের জন্য কেউ পঁচিশ বছর বয়সেই বিলিনার হয়ে যায় । এবং পঞ্চাশ বছরে মারা যায় । কেউ আবার পঞ্চাশ বছর বয়সে বিলিয়নিয়ার   হয় এবং নব্বই বছর অব্দি বেঁচে থাকে। আবার কেউ পঞ্চান্ন বছর বয়সে রিটায়ার হয়ে যায় । আবার কেউ সত্তর বছর বয়সে নিজের ক্যারিয়ার শুরু করে ।  

মোটিভেশনাল ছোট গল্প, অনুপ্রেরণার গল্প

তাই সময় নষ্ট না করে সময় টাকে নিজের কাজে লাগান । একদিন  দেখবেন এই সময়ের ফল পাচ্ছেন। এই ব্লগের পক্ষ থেকে আমি অন্তর ছিলাম । আবারো কথা হবে নতুন একটি আর্টিকেল বা ব্লগে। ততো খুন সুস্থ থাকবেন। ( পবিত্র মাহে রমজানের শুভেচ্ছা - শাফায়াত অন্তর এর পক্ষ থেকে  ) আমরা বাঙালী - Amra Bangali

2 Comments

  1. আমাদের গল্প পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ; আপনি আমাদের আরও গল্প পড়তে নিচের লিংকে ক্লিক করুন
    BD-Express

    ReplyDelete

Post a Comment

Previous Post Next Post